গুগলের বৈদ্যুতিক ওষুধ আবিষ্কার!

বৈদ্যুতিক ওষুধ, বায়োইলেকট্রনিক মেডিসিন, ক্লিনিক্যাল টেস্টিং, জীবন বিজ্ঞান, রোবোটিক যন্ত্র

ওষুধ শুধুমাত্র গিলে খাওয়া নয়, বরং বৈদ্যুতিক সংকেতের মাধ্যমে আরোগ্য লাভের কথা ভাবছে গুগল। ব্রিটিশ ওষুধ প্রস্তুত কারক প্রতিষ্ঠান গ্ল্যাক্সোস্মিথক্লাইন এর সাথে অংশীদারীত্বের ভিত্তিতে নতুন একটি প্রতিষ্ঠান চালু করতে যাচ্ছে গুগলের মূল প্রতিষ্ঠান অ্যালফাবেট। গতকাল এক যৌথ বিবৃতিতে বলা হয়, নতুন এই প্রতিষ্ঠানের কাজ হবে বায়োইলেকট্রনিক মেডিসিন উৎপাদন।

গ্যালভানি বায়োইলেকট্রনিকস নামের এই নতুন প্রতিষ্ঠানে আগামী ৭ বছরে ৭০ কোটি ডলারের বেশি বিনিয়োগ করার পরিকল্পনা করছে প্রতিষ্ঠান দুইটি। নতুন এই প্রকল্পের ৪৫ শতাংশের মালিকানা থাকছে অ্যালফাবেট এর জীবন বিজ্ঞান বিভাগের হাতে।

গবেষণার সাম্প্রতিক বিষয় হিসেবে বায়োইলেকট্রনিক মেডিসিন এখন বেশ গুরুত্বের সঙ্গে নেওয়া হচ্ছে। এই প্রযুক্তিতে মানুষের শরীরে ক্ষুদ্রাকৃতির যন্ত্রাংশ বসানো হয়, যেটি দিয়ে স্নায়ুতন্ত্রে বৈদ্যুতিক সংকেতের প্রবাহের ধারায় পরিবর্তন এনে হাঁপানি, বাতসহ বিভিন্ন রোগের চিকিৎসা করা হয়।

তবে আশার কথা হচ্ছে, বিদ্যমান চিকিৎসা সেবার তুলনায় এই যন্ত্র গুলোর খরচ কম, অপরদিকে বেশ কার্যকর। গত বছরের আগস্ট মাস থেকে জীবন বিজ্ঞানের জন্য একটি আলাদা বিভাগ খুলেছে গুগল। এর কয়েক দিন পরই ব্যবসায়ের পরিবর্তন এনে অ্যালফাবেট প্রতিষ্ঠা করা হয়।

নতুন এই বিভাগ চালু করার সময় গুগলের সহ প্রতিষ্ঠাতা সার্জেব্রিন এক ব্লগ পোস্টে লিখেছিলেন, তারা নতুন প্রযুক্তি গুলোকে প্রাথমিক ধাপ, উন্নয়ন এবং গবেষণা থেকে ক্লিনিক্যাল টেস্টিং স্তরে নিয়ে যাওয়ার জন্য অন্যান্য জীবন বিজ্ঞান প্রতিষ্ঠান গুলোর সাথে কাজ করা অব্যাহত রাখবে। এবং আশা করছে রোগ শনাক্তকরণ, দূরীকরণ এবং ব্যবস্থাপনার কাজ অনেকটা সুগম হবে।

এছাড়া অংশীদারীত্বের ভিত্তিতে গুগলের এটাই প্রথম প্রকল্প নয়। শল্য চিকিৎসায় উন্নত রোবোটিক যন্ত্র তৈরি করতে জনসন অ্যান্ড জনসনের সাথে কাজ করেছে অ্যালফাবেট। সূত্রঃ সিএনএন

Tags: , , , , ,

Related posts

Leave a Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.




Top