প্রফেশনাল ফ্রিল্যান্সিং ও আউটসোর্সিং ট্রেনিং ইন ঝিনাইদাহ, খুলনা, বাংলাদেশ।

আউটসোর্সিং কি?

আউটসোর্সিং বলতে কোন ব্যাক্তি বা প্রতিষ্ঠানের কাজ তারা নিজেরা না করে, বাহিরের অন্য কোন ব্যাক্তি বা প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে করিয়ে নেয়াকে বুঝায়। সাধারণত উন্নত দেশগুলো তাদের কাজের মূল্য কমানোর জন্য আউটসোর্সিং করে থাকে। এই কাজ গুলো হতে পারে বিভিন্ন প্রকল্পের অংশবিশেষ অথবা সমগ্র প্রকল্প। আর যারা আউটসোর্সিংয়ের কাজ করে দেন, তাদেরকে বলা হয় ফ্রিল্যান্সার।

ফ্রিল্যান্সিং কি?

ফ্রীল্যান্সিং বলতে স্বাধীনভাবে কোন কাজ করাকে বুঝায়। অর্থাৎ একজন ব্যাক্তি নির্দিষ্ট কোন প্রতিষ্ঠানে কাজ না করে চুক্তি ভিত্তিক বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান বা ব্যাক্তির করাকে বুঝায়। কিন্তু বর্তমান সময়ে ফ্রীল্যান্সিং বলতে যারা অনলাইনের মাধ্যমে আউটসোর্সিং এর কাজ করে ঘরে বসে আয় করেন তাদেরকে বুঝায়। একজন ফ্রীল্যান্সার নিজের পছন্দ মত কাজ বেছে নিতে পারেন। ফ্রীল্যান্সারদেরকে গতানুগতিক কোন অফিস সময়ের মত ধরাবাধা নিয়মের মধ্যে থাকতে হয়না।

কেন আপনি ফ্রিল্যান্সিং ও আউটসোর্সিং শিখবেন?

বিশ্বব্যাপী ফ্রিল্যান্সিং ও আউটসোর্সিংয়ের বিশাল বাজার বা অনলাইন মার্কেট প্লেসের শীর্ষ ভাগ আমাদের প্রতিবেশী দেশ ভারতের হাতে। ফ্রিল্যান্সিং ও আউটসোর্সিং সার্ভিসে ভারতের পাশাপাশি পাকিস্তান, ফিলিপিনস, নেপাল, ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া, ইউক্রেন, আর্জেন্টিনা, ব্রাজিল, চীন, পানামা, রাশিয়া ও মিসর ছাড়াও আরো অনেক দেশ এগিয়ে যাচ্ছে।

অনলাইন মার্কেটপ্লেসে বাংলাদেশ অনেক দেরিতে প্রবেশ করলেও স্বপ্ন দেখার মত বিষয় হচ্ছে, ফ্রিল্যান্সিং বা আউটসোর্সিংয়ে আমরা ধীরে ধীরে হলেও এগিয়ে যাচ্ছি এবং সম্ভাবনাময় দেশের কাতারে চলে এসেছে বাংলাদেশ। এজন্য আউটসোর্সিংয়ের মত শিল্প হয়ে উঠছে বেকার সমস্যা সমাধানের উল্লেখযোগ্য মাধ্যম এবং বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের অন্যতম উপায়।

ফ্রিল্যান্সিংয়ের বেশ কিছু সুবিদার মধ্যে অন্যতম, আপনার নির্দিষ্ট কোন সময়ের প্রয়োজন নেই, ইচ্ছামত সময় বের করে নিয়ে কাজ করা সম্ভব, ফলে পড়াশুনা বা অফিসের তেমন কোন ক্ষতি হয়না। আপনার নিজের ইচ্ছার উপর নির্ভর করে আপনি কখন কাজ করবেন বা কখন করবেন না। খুব সহজেই বাসায় বা অন্য জায়গায় বসে কাজ করতে পারবেন। বাহিরে বের হওয়ার কোন প্রয়োজন নেই।

এই জন্য হরতাল বা অবরোধ আপনার কাজে কোন বাধা প্রদান করতে পারবেনা এবং সবসময় খোলা থাকবে আপনার অনলাইন মার্কেটপ্লেস। শিক্ষাগত যোগ্যতা বা বয়সের তেমন কোন বাধ্যবাধকতা নেই। অনেকেই আছেন অবসর নেওয়ার পরেও কাজ শুরু করেন। এক্ষেত্রে কাজ পারাটাই মুখ্য, আপনার বয়স কিংবা শিক্ষাগত যোগ্যতা নয় (৯০% ক্ষেত্রে)।

গার্টনারের মতে, সস্তা শ্রম আর পর্যাপ্ত জনশক্তি এই দুটি কারণে বাংলাদেশ আউটসোর্সিংয়ের জন্য সম্ভাবনাময় একটি দেশ। এখন পর্যন্ত যেসব ব্যাক্তি বা কোম্পানি বাংলাদেশ থেকে আউটসোর্সিংয়ের কাজ করিয়ে নিয়েছে তারা বাংলাদেশী ফ্রিল্যান্সারদের কাজে সন্তুষ্ট। সুতরাং এই সাফল্য যদি ভালভাবে ধরে রাখা যায় তাহলে ফ্রিল্যান্সিং ও আউটসোর্সিং থেকে বাংলাদেশ একটি বড় সম্ভাবনা আশা করতেই পারে।

অনলাইনে আয়ের জন্য যোগ্যতাঃ

অনলাইনে আয় করার জন্য খুব বেশি যোগ্যতার প্রয়োজন হয়না। নিচের ৪টি গুণই যার মধ্যে আছে সেই কেবল অনলাইনে আয় করার জন্য সামর্থ্য হবেন। আর একটা বিষয়, আপনাকে অবশ্যই ক্লায়েন্টদের সাথে যোগাযোগ করার জন্য ইংরেজিতে কিছুটা দক্ষতা অর্জন করতে হবে।
  • আত্মবিশ্বাস।
  • পরিশ্রম।
  • ধৈর্যশীলতা।
  • সততা।

উপরোক্ত বিষয় গুলো যদি আপনি মানতে না পারেন তাহলে আপনার পক্ষে একজন সফল ফ্রিল্যান্সার হওয়া কখনোই সম্ভব না। আর আইটিস্কিলআপ ইন্সটিটিউট এর ফ্রিল্যান্সিং ও আউটসোর্সিং কোর্সে আমাদের সকলের চেষ্টা থাকবে ফ্রিল্যান্সিং ও আউটসোর্সিংয়ের সকল অনলাইন মার্কেটপ্লেস, বিভিন্ন কাজ, কাজের ধরন এবং ক্লাইন্টদের সাথে রিলেশন মেন্টেইনসহ সকল বিষয় বুঝিয়ে ও শিখিয়ে দেয়া।

প্রফেশনাল ফ্রিল্যান্সিং ও আউটসোর্সিং কোর্স হাইলাইটসঃ

  • অনলাইন মার্কেটপ্লেস পরিচিতি।
  • মার্কেটপ্লেস অ্যানালাইজ।
  • অনলাইন মার্কেটপ্লেসে অ্যাকাউন্ট তৈরি।
  • কাজ করার ক্ষেত্র।
  • মানি ট্রান্সফার পদ্ধতি ও অনলাইন অ্যাকাউন্ট।
  • কিভাবে কাজ পাবেন বা পাওয়ার পদ্ধতি।
  • কিভাবে কাজ শুরু করবেন?
  • ক্লাইন্ট এক্সপেকটেশন এবং স্যাটিসফ্যাকসন।
  • বিভিন্ন সমস্যা এবং সমাধান।
  • ফ্রিল্যান্সিং ও আউটসোর্সিং নিয়ে মুক্ত আলোচনা।
  • এছাড়াও ফ্রিল্যান্সিং ও আউটসোর্সিং সম্পর্কিত আরো অনেক কিছুই থাকছে এই কোর্সটিতে।

কোর্সটিতে অংশগ্রহণ কারীরা যেসকল সুবিধা সমূহ পাবেনঃ

প্রতিদিনের লেকচার, সীট আকারে প্রদান করা হবে।
প্রতিটি ক্লাস শেষে ক্লাসটির প্রেজেন্টেশন দিয়ে দেওয়া হবে।
ফ্রিল্যান্সিং ও আউটসোর্সিং এর উপর কিছু বাংলা ভিডিও টিউটোরিয়াল প্রদান করা হবে।
সকলেই ফ্রিল্যান্সিং ও আউটসোর্সিংয়ের রিয়েল লাইফ প্রজেক্টে অংশ গ্রহণের সুবিধা পাবে।
ফ্রিল্যান্সিং ও আউটসোর্সিংয়ের কাজ প্রাকটিস করার জন্য প্রয়োজনীয় সোর্স ফাইল দিয়ে দেওয়া হবে।
প্রফেশনাল আউটসোর্সিংয়ের ফ্রিল্যান্সারদের মাধ্যমে ট্রেনিং দেওয়া হবে।

কোর্সের সময়সীমাঃ

কোর্সের মোট সময় দেড় মাস এর মধ্যে এক মাসের প্রশিক্ষণ এবং ১৫ দিনের রিয়েল লাইফ প্রজেক্ট।

প্রশিক্ষণ ফিঃ

৩,০০০ টাকা রেজিস্ট্রেশন ফি সহ মোট কোর্স ফি ৪,৫০০ টাকা। এককালীন যারা ৪,৫০০ টাকা দিতে না পারবে তাদের জন্য দুইটি ইন্সটলমেন্টে দেওয়ার সুযোগ রয়েছে। প্রথম ইন্সটলমেন্টে রেজিস্ট্রেশন ফি ৩,০০০ টাকা এবং পরবর্তি মাসে কোর্স ফি ১,৫০০ টাকা দিতে হবে।

ভর্তি এবং রেজিস্ট্রেশনের নিয়মঃ

কোর্সটিতে অংশগ্রহণ করতে ইচ্ছুক ব্যক্তিদের অনলাইন অথবা মোবাইল এর মাধ্যমে এডমিনিস্ট্রেশন বিভাগে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। অনলাইন অথবা মোবাইল এর মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন সফল হওয়ার পর আমাদের এডমিনিস্ট্রেশন থেকে ফোন করে বিস্তারিত জানান হবে। কোর্সের প্রথম ক্লাসের দিন অবশ্যই উল্লেখিত রেজিস্ট্রেশন ফি সহ অংশগ্রহন করতে হবে।

Top