ভিক্ষা দিয়ে সমালোচনায় পড়লেন প্রধানমন্ত্রী

ভিক্ষা, প্রধানমন্ত্রী, ম্যালকম টার্নবুল, অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী, অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী ম্যালকম টার্নবুল

মেলবোর্নের রাস্তায় এক ভিক্ষুককে পাঁচ ডলার (২৯৫ টাকা) দিয়ে সমালোচনায় পড়েছেন অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী ম্যালকম টার্নবুল।

বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বৃহস্পতিবার অর্থনীতি বিষয়ক একটি বক্তব্য দিতে যাওয়ার পথে ভিক্ষুক দেখে দাঁড়িয়ে যান প্রধানমন্ত্রী ম্যালকম টার্নবুল। তার সাথে হাত মেলান এবং ঐ ভিক্ষুকের সামনে রাখা কফির কাপে পাঁচ ডলার গুঁজে দেন তিনি।

ঘটনাটি প্রকাশের পর সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রধানমন্ত্রী ম্যালকম টার্নবুলের ব্যাপক সমালোচনা শুরু হয়। বিপুল সম্পদের মালিক টার্নবুলের এই পাঁচ ডলার ভিক্ষা দেওয়াকে কেউ কেউ দেখছেন কৃপণতা হিসেবে। ডেইলি মেইল এর অস্ট্রেলিয়ান সংস্করণে তাকে কৃপণ ব্যক্তি হিসেবে বর্ণনা করা হয়েছে।

অন্যদিকে প্রধানমন্ত্রী ম্যালকম টার্নবুলের ভিক্ষা দেওয়ার সমালোচনা করে, মেলবোর্নের লর্ড মেয়র রবার্ট ডোয়েল বলেছেন, ভিক্ষা দিলে ভিক্ষুকদের মাদক সেবন এর প্রবণতা বাড়ে এবং এর ফলে দারিদ্র্যতাও বৃদ্ধি পায়। ভিক্ষুককে ভিক্ষা দেওয়ার বদলে স্বেচ্ছাসেবী সংস্থায় দান করার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।

আবার কেউ কেউ বলছেন, ক্যামেরার জন্য এই উদারতা দেখাতে গেছেন প্রধানমন্ত্রীর ম্যালকম টার্নবুল। একজন টুইটারে প্রধানমন্ত্রী ম্যালকম টার্নবুলকে সমর্থনও করে লিখেছেন “আপনারা হয়তো একজনকে দেখছেন, যিনি আরো দিতে পারতেন। কিন্তু আমি একজনকে দেখছি, যিনি দিয়েছেন”

গত জুলাই মাসে তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতা পূর্ণ নির্বাচনের মধ্য দিয়ে পুনরায় ক্ষমতায় যাওয়ার পর অনেক বিষয়েই সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে প্রধানমন্ত্রী ম্যালকম টার্নবুলকে।

ভিক্ষা দেওয়া নিয়ে সমালোচনার মধ্যে এই ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করে শুক্রবার একটি স্থানীয় রেডিও স্টেশনকে তিনি বলেন, এটা ছিল একটি মানবিক প্রতিক্রিয়া মাত্র এবং এতে কেউ যদি হতাশ হয় আমি তাতে দুঃখিত।

প্রধানমন্ত্রী ম্যালকম টার্নবুলই প্রথম রাজনীতিক ব্যাক্তি নন, উদারতা দেখাতে গিয়ে এমন কাজের জন্য তাকে সমালোচনার মুখে পড়তে হলো।

এর আগে ২০১৪ সালে এক গৃহহীন নারীকে দুই পেনি দিয়ে সমালোচিত হয়েছিলেন যুক্তরাজ্যের প্রধান বিরোধী দল লেবার পার্টির সাবেক প্রধান এড মিলিব্যান্ড।

Tags: , , , ,

Related posts

Leave a Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.




Top